1. rakib.bd19@gmail.com : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  2. asim.vai5305@gmail.com : As : As Ilm
  3. geogatedproject364@gmail.com : Aymee : Aymee Hana
  4. hasanchy52@gmail.com : hasanchy :
  5. mahmuda0913@gmail.com : Mahmuda Akter Rozy : Mahmuda Akter Rozy
  6. Manikbau@gmail.com : Fayjul Islam Manik : Fayjul Islam Manik
  7. ghuddirpilot@gmail.com : Rafat Nur : Rafat Nur
September 25, 2021, 12:47 pm

“জেনে নিন গর্ভাবস্থায় ব্যায়াম”

  • পোষ্টের সময় : Sunday, June 6, 2021
  • 338 বার পঠিত
গর্ভকালীন ব্যায়াম

করোনার ভয়ে সবচেয়ে আতংকিত আছেন মায়েরা। বিশেষ করে হবু মায়েদের চিন্তার যেনো শেষ নেই। ফলাফল পরছে তার দেহের উপর, অনাগত শিশুর উপর। এই সময়ে ব্যায়াম মায়েদের ফিজিক্যাল ফিটনেসের পাশাপাশি স্ট্রেস কমিয়ে রিলাক্স থাকতেও সাহায্য করবে। দেহের ইমুউন সিস্টেমকে শক্তিশালী করবে।

আমার আজকের আলোচ্য বিষয় গর্ভাবস্থায় ব্যায়াম। আসুন জেনে নেই এই সময়ে কি কি করা যাবে, কি যাবে না।

অনেকেই মনে করেন গর্ভাবস্থায় ব্যায়াম করাই যাবে না, আদতে এমন কোনো কথা নেই। বরং এই সময়ে যত বেশি কর্মক্ষম থাকা যায়, ততই ভালো।

Several Pregnant Women Exercising With Ball in Gym

♦গর্ভকালীন ব্যায়াম কেনো ভালো?

– মা ও শিশুর মধ্যে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়।

– কোমর, পা ইত্যাদি ব্যাথার উপশমে সাহায্য করে।

– শরীরের বিভিন্ন জয়েন্ট, লিগামেন্ট, মাংসপেশিকে শিথিল করে।

– কাজে উদ্যম আনে, ফিজিক্যাল ফিটনেস বাড়ায়।

– অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধি থেকে বাঁচায়।

– পরিপূর্ণ ও গভীর ঘুমে সাহায্য করে।

– কোষ্ঠকাঠিন্য, অস্থিরতা, দুশ্চিন্তা ইত্যাদি দূর করে।

– পায়ের রক্তনালি ফুলে ওঠা দূর করে।

– স্বাভাবিক প্রসবে সাহায্য করে।

কিভাবে ব্যায়াম করবেন?

ব্যায়াম শুরুর আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনার গর্ভাবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ নয়। নানা কারণে চিকিৎসক আপনাকে পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে বলতে পারেন, সে সময় ব্যায়াম করা যাবে না।

– আপনি যদি আগে থেকেই কিছু হাঁটাহাঁটি বা হালকা ব্যায়ামে অভ্যস্ত থাকেন, তবে তা চালিয়ে নিতে পারেন। তবে পেটের ওপর চাপ পড়ে এমন কোনো ব্যায়াম করা যাবে না। একজন ফিজিওথেরাপিস্ট, যিনি গর্ভকালীন ব্যায়াম সম্পর্কে জানেন—এমন কারও কাছে পরামর্শ নিতে পারেন।

– ব্যায়ামের সময় হালকা ও ঢিলেঢালা আরামদায়ক সুতির পোশাক পরুন। পায়ের জুতা নরম ও মাপমতো হওয়া চাই।

– প্রথমে খানিকটা হালকা ধরনের ব্যায়াম দিয়ে শুরু করুন। হাঁপিয়ে ওঠার মতো বা কষ্টকর ব্যায়াম দরকার নেই। প্রয়োজনে গতি কমান। অস্বস্তি, খারাপ লাগা থাকলে ব্যায়াম বন্ধ করুন।

– ব্যায়ামের দুই ঘণ্টা আগে দুই গ্লাস পানি পান করবেন, ১৫ মিনিট পরও দুই গ্লাস।

– ধীরে অবস্থান পরিবর্তন করুন, যেন ভারসাম্য না হারায়। ব্যায়াম শেষে হালকা হাঁটাহাঁটি করুন, তারপর কিছুটা বিশ্রাম নিন।

♦ কখন ব্যায়াম করা নিষেধ?

– উচ্চ রক্তচাপ, রক্তশূন্যতা, হূৎপিণ্ড ও ফুসফুসের রোগ, গর্ভাবস্থায় রক্তক্ষরণ, ফুল নিচের দিকে থাকা বা প্লাসেন্টা প্রিভিয়া থাকলে ব্যায়াম নিষেধ।

– আগে গর্ভপাত হওয়ার ইতিহাস থাকলেও ঝুঁকি নেবেন না।

– ডাইভিং, জিমন্যাস্টিক, হকি, কারাতে, সাইক্লিং, নেট বল প্র্যাকটিস বা পাহাড়ে ওঠা জাতীয় পরিশ্রম গর্ভাবস্থায় করা যাবে না।

হবু মায়েরা দুঃশ্চিন্তামুক্ত থাকুন।হ্যাপি প্রেগনেন্সি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোষ্টটি শেয়ার করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো পোষ্ট দেখুন...
© All rights reserved © 2021 Shial Mama
Theme Customized By BreakingNews